মঙ্গলবার, ২৭ জুলাই ২০২১, ০২:২৩ পূর্বাহ্ন
ঘোষণা:
সত্য প্রকাশে অপ্রতিরোধ্য দৈনিক সময়ের কণ্ঠ ডটকমে আপনাকে স্বাগতম  

খোকসা উপজেলায় ঈমাম দম্পতিকে পিটিয়ে গুরুত্বর জখম করলো ৪ বখাটে

খোকসা প্রতিনিধি সজল রায়
আপডেট টাইম : শনিবার, ২৭ জুন, ২০২০, ৬:১০ অপরাহ্ন

কুষ্টিয়া  জেলার মহাসড়কে ঘুড়ি উড়ানো মানা করায় খোকসা উপজেলার কমলাপুর মসজিদের ঈমাম দম্পতিকে গুরুতর ভাবে আহত করল ৪ বখাটে। ঘটনাটি ঘটেছে কুষ্টিয়া জেলার কুমারখালী জিলাপী তলা সংলগ্নে।

গুরুতর আহত অবস্থায় ঈমাম দম্পতি খোকসা উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে চিকিৎসাধীন আছেন। আহত হাফেজ মো:রফিকুল ইসলাম খোকসা উপজেলার কমলাপুর মসজিদের ইমাম।

আজ শনিবার (২৭ জুন ২০২০) দুপুরে কুমারখালী খয়েরচরা হতে খালাত ভাই শফিকুলের বাড়ি থেকে দাওয়াত খেয়ে খোকসায় ফেরার পথে সদকি ইউনিয়নের সাবেক চেয়ারম্যান লুৎফুর রহমানের ইটের ভাটার সামনে কুষ্টিয়া রাজবাড়ী মহাসড়কের উপর ঘুড়ির সূতা মোটরসাইকেল আরোহী ইমাম দম্পতির গায়ে জড়িয়ে গেলে গোলমালে সূত্রপাত হয়। কথা কাটাকাটির এক পর্যায়ে ঘুড়ি ওড়ান বকাটে ৪ যুবক (মুন্নু, চান্নু আশা ও অজ্ঞাত একজন) ইট, বেলচা, লাঠি দিয়ে বেধড়ক পিটিয়ে হাফেজ মো: রফিকুল ইসলাম (৩৮) মাথায় আঘাত করে ও ডান হাত ভেঙ্গে ও তার স্ত্রী পলি আক্তার(৩২) এর বাম হাত ভেঙ্গে গুরুতর আহত করে রাস্তার উপর ফেলে রাখে।
স্থানীয় এলাকাবাসী ও পথচারীরা আহত দু’জনকে উদ্ধার করে খোকসা উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভ্যানযোগে পাঠিয়ে দেয়। বিকাল ৪টার সময় উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স খোকসা জরুরি বিভাগের কর্তব্যরত ডাক্তার তাদেরকে প্রাথমিক চিকিৎসা দিয়ে হাসপাতালে ভর্তি করেন।

এ ব্যাপারে হাফেজ মো:রফিকুল এর ছোট ভাই হাফেজ মো: সালাউদ্দিন কুমারখালী থানায় একটি এজাহার দায়ের করেন এ রিপোর্ট লেখা পর্যন্ত মামলার প্রস্তুুতি চলছিলো।

এ বিষয়ে কুমারখালী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মুজিবুর রহমান জানান, ঘটনা তদন্তে একজন অফিসার পাঠানো হয়েছে। তিনি আসলেই প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে। তবে আসামিদের বাড়িতে খোঁজ নেওয়া হয়েছে তাদেরকে খুঁজে পাওয়া যাচ্ছে না। তবে তাদের দ্রুতই ধরে বিচারের আওতায় আনা হবে।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এ জাতীয় আরো সংবাদ.....
এক ক্লিকে বিভাগের খবর