বৃহস্পতিবার, ০৮ ডিসেম্বর ২০২২, ০৪:৫৪ পূর্বাহ্ন
ঘোষণা:
সত্য প্রকাশে অপ্রতিরোধ্য দৈনিক সময়ের কণ্ঠ ডটকমে আপনাকে স্বাগতম  

৪০০ টাকার কাঁঠাল ২০ টাকায় বিক্রি

মো.মোমিন ইসলাম, কুষ্টিয়া
আপডেট টাইম : সোমবার, ২০ জুন, ২০২২, ৬:১১ অপরাহ্ন

কাঁচা বা পাকা, কাঁঠাল দুইভাবেই খাওয়া যায়। কাঁঠালে ভিটামিন এ, সি, থায়ামিন, রাইবোফ্লোবিন, আয়রন, ক্যালসিয়াম ও পটাশিয়াম রয়েছে। কাঁঠালের সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ স্বাস্থ্য উপকারিতা। এতে থাকা ভিটামিন সি ব্যাকটেরিয়ার সংক্রমণ থেকে দেহকে রক্ষা করে এবং রক্তের শ্বেতকনিকার কার্যক্ষমতা বাড়িয়ে রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতাকে দৃঢ় করে।

কাঁঠাল হজমে সাহায্য করে-হজমের ক্ষেত্রে কাঁঠালের অনেক উপকারি ভূমিকাও রয়েছে। এর আলসার প্রতিরোধক গুনাগুনের জন্য এটি আলসার প্রতিরোধ করতে পারে এবং হজমের সমস্যা দূর করে। এছাড়া কোষ্ঠ্যকাঠিন্য থাকলে কাঁঠাল খেলে তা অন্ত্রের চলাচল সহজ করে। কাঁঠাল উচ্চ রক্তচাপ কমায়- এটি পটাশিয়ামের খুব ভাল উৎস হওয়ার ফলে উচ্চ রক্তচাপ স্বাভাবিক রাখে এবং হার্ট অ্যাটাক ও স্ট্রোকের ঝুঁকি কমায়।

কুষ্টিয়া জেলার কুমারখালী উপজেলার দবির মোল্লার রেলগেটে (২০ জুন-২২) সোমবার সকাল থেকে উত্তর পাড় সাঁওতা এলাকার মৃত তাহাজ উদ্দিনের ছেলে আবু কালাম কালু (৪৮) নামে এক ব্যক্তি ৩০ কেজি ওজনের বিশাল একটি কাঁঠাল বিক্রয়ের জন্য দবির মোল্লা রেলগেটে বাজারে নিয়ে বসেছিলেন সকাল থেকে।

কাঁঠালটি অনেক বড় হওয়ার কারণে অনেকেই দাম শুনে চলে যাচ্ছে। কিন্তু কেউ কিনছেনা। আবার অনেকেই যা দাম বলছে তাতে তার দেয়া সম্ভব হচ্ছে না। বিকেল গড়িয়ে গেলেও কাঁঠালটি বিক্রি না হওয়ায়।

কাঁঠাল বিক্রেতা কালু বলেন, আমি দিনমজুরি করে খাই। যখন যে কাজ পায় তখন সেই কাজ করেই সংসার চলে আমার। আমি গরিব মানুষ এই কাঁঠালটি বিক্রি হলে আমি বাড়ির জন্য চাল, ডাল, কিনে নিয়ে ছেলে সন্তান নিয়ে এক সাথে খাওয়া-দাওয়া করবো।

এদিকে আবার করোনা ভাইরাস বেড়ে যাওয়ায় সোমবার থেকে রাত আটটার পর সারাদেশে দোকানপাট, বিপণিবিতান, মার্কেট বন্ধ রাখার সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে। এমন খবর শুনতে পেয়ে আস্তে আস্তে বাজারের মানুষজন বাড়িতে চলে যাচ্ছিলো।

কাঁঠাল বিক্রেতা কালুর মুখে এমন করুণ কথা শুনতে পেয়ে, এমত অবস্থায় স্থানীয় গণমাধ্যমকর্মী ও সাধারন জনগন মিলে আলাপ-আলোচনা করে তাদের মাথায় বুদ্ধি আসে ২০ জন একসাথে হয়ে ২০ টাকা করে জমা দিয়ে ২০ জনের নাম কাগজে লিখে এক জায়গায় করে ছোট্ট একটি বাচ্চাকে দিয়ে একটি নামের কাগজ তোলা হয়। এভাবেই করে ৭ টার সময় তার কাঁঠালটি বিক্রি করে দেওয়া হয়।

কাঁঠালটি দাম ছিলো ৪০০ টাকা। ২০ জনের মধ্যে বিজয়ী হন- দবির মোল্লার রেলগেটের মুদি দোকানদার হানিফ নামের এক জন। পরে বিজয়ীর হাতে ২০ টাকায় ৪০০ টাকার মূল্যর সেই বিশাল কাঁঠালটি তুলে দেওয়া হয়।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published.

এ জাতীয় আরো সংবাদ.....
এক ক্লিকে বিভাগের খবর