বৃহস্পতিবার, ০৮ ডিসেম্বর ২০২২, ০৬:৪৩ পূর্বাহ্ন
ঘোষণা:
সত্য প্রকাশে অপ্রতিরোধ্য দৈনিক সময়ের কণ্ঠ ডটকমে আপনাকে স্বাগতম  

মাঘের শেষ দিকে বৃষ্টি, আমে চাষীদের জন্য আশীর্বাদ

নিজস্ব প্রতিবেদক
আপডেট টাইম : শুক্রবার, ৪ ফেব্রুয়ারী, ২০২২, ১০:২২ পূর্বাহ্ন

মাঘের শেষ দিকে এসে আজ শুক্রবার ভোর থেকে চাঁপাইনবাবগঞ্জে ঝরছে বৃষ্টি। এটি আমের জন্য আশীর্বাদ হলেও সর্বনাশ হবে রবি শস্য ফসলের। এমনটাই বলছেন স্থানীয় কৃষি বিভাগসহ সংশ্লিষ্ট কৃষকেরা।

শিবগঞ্জ উপজেলার আমচাষি আসলাম খান জানান, মাঘের বৃষ্টি আমের জন্য আশীর্বাদ হবে। কারণ হিসেবে তিনি উল্লেখ করেন, এখন আমবাগানে প্রচুর পরিমাণে সেচ দিতে হচ্ছে। পর্যাপ্ত পরিমাণে সেচ দিতে পারলেই মুকুল ফুটবে গাছে। তিনি বলেন, এখন পাতার মাঝে উঁকি দিচ্ছে আমের মুকুল। প্রায় গাছেই এখন আগাম মুকুল দেখা দিয়েছে। পানি পাওয়ায় আরও দ্রুত গাছে বের হবে মুকুল। আর পানি না পেলে মুকুলগুলো আরও দেরিতে বের হতো।

অপর স্থানীয় এক আমচাষি বলেন, মাঘের বৃষ্টি আমচাষিদের জন্য আশীর্বাদ বটে। প্রতিবছর সেচ বাবদ কৃষকদের বিশাল অঙ্কের টাকা খরচ হতো। সেই খরচ কিছু হলেও বাঁচবে কৃষকদের। তিনি বলেন, বিগত কয়েক বছর আমের ন্যায্যমূল্য পাননি এখানকার আমচাষিরা। শুধু খরচ করেই গেছেন। এবার দুই দফায় বৃষ্টি হওয়ায় অধিকাংশ আমচাষির কিছু হলেও খরচ বাঁচবে। ফলে আমে লাভবান হওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে।

উজিরপুর এলাকার কৃষক আলম জানান, চলতি মৌসুমে তিনি সাড়ে তিন বিঘা জমিতে মসুর ডাল চাষ করেছিলেন। আর কয়েক দিন পরেই ঘরে তোলা হতো মসুর ডাল। কিন্তু শুক্রবার দিনভর ভারী বৃষ্টি হওয়ায় মসুর ডালের গাছ পচে ফল মাটিতে ঝরে পড়ে যাবে। এতে বিপুল পরিমাণ ক্ষতির মুখে হবেন তিনি।
ইসলামপুর এলাকার সমশের নামে এক কৃষক জানান, তিনি কয়েকজন দোকানির কাছ থেকে টাকা ধার নিয়ে পাঁচ বিঘা জমিতে ধনে ও সরিষার চাষ করেছেন। দুই ফসল এখন ঘরে তোলার সময়। কিন্তু শুক্রবার টানা বৃষ্টির কারণে আর্থিক ক্ষতির মুখে পড়তে হবে তাঁকে।

চাঁপাইনবাবগঞ্জ কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তরের উপপরিচালক মুহাম্মদ নজরুল ইসলাম জানান, বৃষ্টিতে আমে মুকুলের উপকার হবে। তবে রবি শস্যের কিছুটা ক্ষতি হওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published.

এ জাতীয় আরো সংবাদ.....
এক ক্লিকে বিভাগের খবর