বৃহস্পতিবার, ০৮ ডিসেম্বর ২০২২, ০৬:২১ পূর্বাহ্ন
ঘোষণা:
সত্য প্রকাশে অপ্রতিরোধ্য দৈনিক সময়ের কণ্ঠ ডটকমে আপনাকে স্বাগতম  

প্রতারণার ফাঁদ পেতে একই জমি একাধিকবার বিক্রি!

মোঃ মোমিন ইসলাম, কুষ্টিয়া
আপডেট টাইম : শুক্রবার, ২২ জুলাই, ২০২২, ৪:০৮ অপরাহ্ন

একই জমি একাধিক ব্যক্তির কাছে বিক্রি। আর বিক্রির পর সেই জমি দখল না দিয়ে পুনয়ায় বিক্রির অভিযোগ পাওয়া গেছে কুষ্টিয়া সদরের জিয়ারখী ইউনিয়নের নগর মোহাম্মদপুর এলাকার মৃত আব্দুল মান্নানের ছেলে আব্দুল হামিদ ও কুষ্টিয়া কুমারখালী উপজেলার নন্দনালপুর ইউনিয়নের সোন্দাহ এলাকার মফিজুল ইসলামের স্ত্রী শিউলী খাতুন বিরুদ্ধে।

অভিযোগ সূত্রে জানা গেছে, কুষ্টিয়া কালিশংকরপুর মৌজার আর এস ২৮০৮ দাগের ৩.৬০ শতাংশ জমি ক্রয় করেন কুষ্টিয়ার সাবেক (ব্যাংকার) খাইরুন্নেছা। এরপর উক্ত জমির দখল বুঝিয়া চাইলে তারা বুঝাইয়া দিতে গড়িমসি করেন জমির নামধারী মালিকরা।

বিভিন্ন সূত্রে জানা যায়, উক্ত জমির মূল মালিক কুষ্টিয়া সদরের হরিশংকরপুর এলাকার আবুল হোসেন
তিনি বেঁচে থাকতে এই জমি রবুল দিগরদের নিকট বিক্রি করেন। এরপর আবুল হোসেন মারা যাওয়ার পরে তারের সন্তানদের কাছ থেকে প্রতারক চক্র আব্দুল হামিদ ও শিউলী ৫০ হাজার টাকা দিয়ে জমিটি শিউলীর নামে রেজেস্ট্রি করে নেন। এরপরে প্রতারক চক্রটি কুষ্টিয়া পূর্ব মিলপাড়ার মৃত সরোয়ার মোল্লার সহজ সরল স্ত্রী সাবেক (ব্যাংকার) খায়রুন্নেছার কাছে ১৫ লক্ষ ২০ হাজার টাকায় উক্ত জমিটির বিক্রি করে দেন।

ভুক্তভোগী পরিবারের সন্তানরা বলেন, গত ২০১৭ ইং সালে উক্ত জমিটি আমার আম্মু ক্রয় করে। জমি খারিজ করা হয় ২৪/০৫/২০১৭ ইং ও মিউটেশন কেস নং ৫৮১২/৯-২/২০১৬-২০১৭। প্রতারক চক্র হামিদ ও কুষ্টিয়া সদর ভূমি রেজিস্ট্রি অফিসের কিছু অসাধু ব্যক্তির সহযোগিতায় উক্ত জমিটি আমার আম্মুর কাছে বিক্রি করা হয়। জমি দখল বুঝিয়া না পাওয়া কারণেই আমার আম্মু বর্তমানে অসুস্থ হয়ে পড়েছেন।

তারা আরো বলেন, আম্মুর চাকরি জীবনের ও অবসরকালীন সমস্ত অর্থ জমি জালিয়াতি চক্রের আব্দুল হামিদ হাতিয়ে নিয়েছে। এই কারণে আজ আমার আম্মু সর্বহারা হয়ে বিছানাগত আছে।

এ বিষয়ে এলাকাবাসী সূত্রে জানা যায়, আব্দুল হামিদ জমি ব্যবসার নামে জালিয়াতি করে আসছে দীর্ঘদিন ধরে। জমি জালিয়াতি চক্রের হামিদ কাগজপত্রে জমি আছে বলে ক্রেতাদের বোঝার কিন্তু সরজমিনে গেলে জমি পাওয়া যায়না। এই বিষয় নিয়ে অনেকবার তার বিরুদ্ধে জমি জালিয়াতির অভিযোগ উঠে এসেছে।
বিষয়টি প্রশাসনকে দৃষ্টিপাত করছেন এলাকার সচেতন মহল।

এ বিষয়ে কুষ্টিয়ার র‍্যাব ১২ ক্যাম্পে মোবাইল ফোনে যোগাযোগ করলে র‍্যাবের কোম্পানী কমান্ডার স্কেয়াডন লীডার মোহাম্মদ ইলিয়াস খান বলেন, এই বিষয়ে আমরা কোন অভিযোগ পাই নাই। তবে অভিযোগ পেলে আমরা দূরুত তদন্ত সাপেক্ষে তারা দোষী প্রমাণিত হলে তাদেরকে আইনের আওতায় এনে আইনগতভাবে শাস্তির ব্যবস্থা করব।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published.

এ জাতীয় আরো সংবাদ.....
এক ক্লিকে বিভাগের খবর